1. miahmohammadshuzan@gmail.com : Central News :
  2. centralnewsbd24@gmail.com : CNB BD : CNB BD
স্কুলছাত্র অপহরণ: চাঞ্চল্যকর তথ্য পেলো গোয়েন্দারা (ভিডিও) | Central News BD
মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ০২:০৮ অপরাহ্ন

স্কুলছাত্র অপহরণ: চাঞ্চল্যকর তথ্য পেলো গোয়েন্দারা (ভিডিও)

স্টাফ রিপোর্টার
  • আপডেট সময় : রবিবার, ২৪ মার্চ, ২০২৪
  • ২৭ জন সংবাদটি পড়েছেন

রাজধানীর মাস্টারমাইন্ড স্কুলের ছাত্র শিশু জামিনুর রহমান (১১) অপহরণের ঘটনায় ৭ জনকে গ্রেপ্তার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। সেই ঘটনার তদন্ত করতে গিয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য পেয়েছেন গোয়েন্দারা।

রোববার (২৪ মার্চ) ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ হারুন অর রশিদ এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, পটুয়াখালী সদরের আব্দুল হাই মাতব্বরের ছেলে আবদুল্লাহ আল মামুন (৩৭), পটুয়াখালী রাঙ্গাবালির বাসিন্দা আইয়ুব আলী ভান্ডারীর ছেলে নূর আলম (৩০), ভোলা লালমহনের বাসিন্দা মোহাম্মদ হোসেনের ছেলে কামরুল হাসান (২৮), ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ার বাসিন্দা কামাল মিয়ার ছেলে রনি মিয়া (৩০), ভোলা চরফেশানের বাসিন্দা দীল মোহাম্মদদের ছেলে মনির হোসেন (৩২), ঢাকা সাভারের মিথুন বিশ্বসের ছেলে জনি বিশ্বাস (৪২), পটুয়াখালী গলাচিপার বাসিন্দা আবুল হোসেন হাওলাদারের ছেলে আসলাম হাওলাদার (২৮)।

ডিবি প্রধান হারুন অর রশিদ বলেন, চক্রটি প্রথমে টার্গেট করে চালককে। তাতে ব্যর্থ হলে নিজেদের এক সদস্যকে চালক সাজিয়ে নিয়োগ দেয়া হয়। এরপরই অপহরণের খেলায় মেতে উঠে তারা।

তিনি বলেন, শালা-দুলাভাই মিলে এই ঘটনাটি ঘটিয়েছেন। চালক কামরুল হচ্ছেন শালা। আর তার দুলাভাইয়ের নাম আব্দুল আল মামুন। তারা দুজনে মিলেই পরিকল্পনা করেন। গ্রেপ্তারকৃতদের প্রত্যেকের নামেই একাধিক মামলা রয়েছে।

আরও পড়ুন: ভাটারায় বাথরুম থেকে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও গোলাবারুদ উদ্ধার, গ্রেপ্তার ৭

এর আগে বুধবার (২০ মার্চ) বড় ভাই আমিনকে তার স্কুলে নামিয়ে দেয় তাদের ব্যক্তিগত গাড়িটি। এরপর ছোট ভাই জামিনুরকে তার স্কুলে নামিয়ে দিতে গাড়িটি রওনা দেয়। এ ঘটনার পর থেকেই ১১ বছর বয়সী জামিনুরের আর সন্ধান মেলেনি। ঘটনা দিন বিকেলেই এক অপরিচিত নম্বর থেকে ফোন করে জানানো হয় গাড়ি এবং ড্রাইভারকে অপহরণ করা হয়েছে।

অপহরণকারীদের দাবি, ফিরে পেতে হলে দিতে হবে ১ কোটি ৫ লাখ টাকা। আর থানায় অভিযোগ করলেই দেয়া হয় হত্যার হুমকি। থানায় অভিযোগ না দিয়ে শেষমেশ দফারফা হয় ১৪ লাখ টাকায়। টাকা বুঝে পেয়ে সেদিন মধ্যরাতেই ফিরিয়ে দেয়া হয় সবাইকে।

তবে এঘটনায় বাবা অভিযোগ না করলেও শিশুটির চাচা ধানমন্ডি থানায় অভিযোগ করেন। এরপর অভিযান চালিয়ে ৭ জনকে গ্রেপ্তারের পর বেশকিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য পান গোয়েন্দারা। অপহরণকারীরা জানান, এ ঘটনার মূলে রয়েছেন গাড়িটির চালক।

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন

এই ক্যাটাগরীর আরও খবর

© ২০২১-২৩ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | সেন্ট্রাল নিউজ বিডি.কম

Theme Designed BY Kh Raad ( Frilix Group )