1. miahmohammadshuzan@gmail.com : Central News :
  2. centralnewsbd24@gmail.com : CNB BD : CNB BD
গণতন্ত্র বিকশিত হয় নির্বাচনের মাধ্যমেই: সিইসি | Central News BD
সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:১০ অপরাহ্ন

গণতন্ত্র বিকশিত হয় নির্বাচনের মাধ্যমেই: সিইসি

ডেস্ক রিপোর্ট
  • আপডেট সময় : সোমবার, ১৮ এপ্রিল, ২০২২
  • ৩২ জন সংবাদটি পড়েছেন

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল বলেছেন, গণতন্ত্র বিকশিত হয় নির্বাচনের মাধ্যমেই। নির্বাচনে অংশ না নিলে গণতন্ত্র বিকশিত হবে না।

তিনি বলেন, কে নির্বাচনে অংশ নেবে, কে নেবে না সেটা ফোর্স (জোর) করা আমাদের পক্ষে সম্ভব নয়। তবে দায়িত্ব থাকবে আহ্বান করা যে- আপনারা আসেন, নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেন। নির্বাচনে অংশ না নিলে কিন্তু গণতন্ত্র বিকশিত হবে না। গণতন্ত্র বিকশিত হয় কিন্তু নির্বাচনের মাধ্যমেই। একটা সুন্দর গ্রহণযোগ্য সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য সবাইকে চেষ্টা করতে হবে। আমরা অর্থহীন কোনো সংলাপ করছি না।

রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে দেশের জ্যেষ্ঠ সাংবাদিকদের সঙ্গে বৈঠক শেষে সিইসি এসব কথা বলেন।

কাজী হাবিবুল আউয়াল বলেন, ‘স্বচ্ছতা খুব গুরুত্বপূর্ণ। কেন্দ্রের ভেতরে ক্যামেরা ও বাইরের মনিটরে সব দেখা যায়। এগুলো নিয়ে কথা হয়েছে। জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষকদের বিচরণ যদি থাকে, তারাও রিপোর্ট করতে পারবেন। একটি সুষ্ঠু, গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের জন্য এই সমস্ত বিষয়ের প্রয়োজন আছে বলে আমরা মনে করি।

তিনি বলেন, ‘আমাদের সৎভাবে দায়িত্ব পালনের চেষ্টা আছে, থাকবে। ব্যাপক অনিয়মের তথ্য আমাদের কাছে আসলে সাহস নয়, আমাদের দায়িত্ব হয়ে যাবে যথাযথ সিদ্ধান্ত নেয়ার। অনেক বিধান আমাদের অনুকূলে থাকলেও তা প্রয়োগ বাড়াতে হবে। নির্বাচনকে হস্তক্ষেপ মুক্ত রাখতে যা যা করতে হয়, তা করতে হবে।

সিইসি বলেন, নির্বাচনে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ প্রতিটি ভোটকেন্দ্রে যেন ভোটাররা নির্বিঘেœ ভোট দিতে পারে, তা নিশ্চিত করা। অনেক সময় কারচুপি হয়, সেটা যেকোনোভাবে রোধ করতে হবে। আমরা আমাদের সামর্থ্য, দক্ষতা বৃদ্ধির চেষ্টা করবো।

আরও পড়ুন:

দেশের অনেক মানুষ দরিদ্র হয়ে গেছে: জিএম কাদের

তিনি বলেন, ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) সুবিধা পেশিশক্তির ব্যবহার হ্রাস করতে পারে, যেখানে সিল দিয়ে ব্যালট বাক্স পূরণ করা যায় না। কাজেই ইভিএমের ভালো দিক রয়েছে। সংলাপে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) নিয়ে কথা হয়েছে। আমরা এরই মধ্যে এ নিয়ে কয়েকটি মিটিং করেছি।

সংলাপে চার নির্বাচন কমিশনারসহ ইসির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সংলাপে অংশগ্রহণ করেন- বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার (বাসস) ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, একাত্তর টিভির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোজাম্মেল বাবু, সিনিয়র সাংবাদিক মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল, ডিবিসি নিউজের সিইও মঞ্জুরুল ইসলাম, গ্লোবাল টিভির এডিটর সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা, আরটিভি’র সিইও সৈয়দ আশিক রহমান, মাছরাঙা টিভির হেড অব নিউজ রেজোয়ানুল হক রাজা, এনটিভির বার্তা প্রধান জহিরুল আলম, জাগো নিউজের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক কে এম জিয়াউল হক, একুশে টিভির হেড অব নিউজ রাশেদ চৌধুরী, চ্যানেল আইয়ের প্রধান বার্তা সম্পাদক জাহিদ নেওয়াজ খান, বাংলাভিশনের হেড অব নিউজ আব্দুল হাই সিদ্দিক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের প্রধান সম্পাদক তৌফিক ইমরুজ খালিদী, মাইটিভির হেড অব নিউজ শেখ নাজমুল হক সৈকত, সময় টিভির হেড অব নিউজ মুজতবা দানিশ, ইন্ডিপেন্ডেন্ট টিভির চিফ নিউজ এডিটর আশিস সৈকত, এটিএন বাংলার প্রধান নির্বাহী সম্পাদক জ ই মামুন, চ্যানেল টোয়েন্টিফোরের নির্বাহী পরিচালক তালাত মামুন, নিউজ ২৪-এর এক্সিকিউটিভ এডিটর রাহুল রাহা, দেশটিভির চিফ নিউজ এডিটর বোরহানুল হক সম্রাট, বাংলা ট্রিবিউনের বার্তা প্রধান মাসুদ কামাল, সাংবাদিক মোস্তফা ফিরোজ, নাগরিক টিভির হেড অব নিউজ দীপ আজাদ, যমুনা টিভির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ফাহিম আহমেদ ও স্পাইস টিভির এডিটরিয়াল হেড তুষার আব্দুল্লাহ।

সংলাপে অংশ নিয়ে বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘কথায় কথায় ইসিকে পদত্যাগের কথা বলা হয়। পদত্যাগের পরামর্শ শুভচিন্তা নয়। পদত্যাগে বাহাদুরির কিছু নেই। ভোটে আসা না আসা দলগুলোর নিজের সিদ্ধান্তের বিষয়।

মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল বলেন, ‘আপনাদের নিয়ে কেউ প্রশ্ন তোলেনি, সেটিই আমরা প্রত্যাশা করেছিলাম। আপনারা জানেন আপনাদের কাজটা কী? ডানে-বাঁয়ে কিছুই নেই ভালো নির্বাচন করা ছাড়া। নির্বাচন কমিশন হতভাগা প্রতিষ্ঠান। যারাই হেরেছে, তারাই নির্বাচন কমিশনকে দোষ দিয়েছে। কাজেই আপনারা হতাভাগা প্রতিষ্ঠানে এসেছেন। সেটা একটা সাহসের জায়গা।

একাত্তর টিভির প্রধান সম্পাদক ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোজাম্মেল বাবু বলেন, ‘আপনাদের নিয়োগ নিয়ে কেউ প্রশ্ন তুলতে পারেনি। আপনারা যদি ঠিকমতো কাজ করেন, তবে যে যাই বলুক তা ধোপে টিকবে না। ৫০ বছরে নির্বাচন কমিশন বিতর্তিক হয়েছে। কখনও কখনও দলগুলো ইচ্ছাকৃত ইসিকে বিতর্কিত করেছে। এটা একটা রাজনৈতিক উদ্দেশ্য। আপনাদের এটার ঊর্ধ্বে থাকতে হবে।

তিনি বলেন, ‘ইভিএম ইজ দ্য সলিউশন, ইভিএম ইজ দ্য প্রবলেম। পেপার টেইল চালু করা গেলে ইভিএমের প্রতি আস্থা বাড়বে।’

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন

এই ক্যাটাগরীর আরও খবর

© ২০২১-২৩ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | সেন্ট্রাল নিউজ বিডি.কম

Theme Designed BY Kh Raad ( Frilix Group )