1. miahmohammadshuzan@gmail.com : Central News :
  2. centralnewsbd24@gmail.com : CNB BD : CNB BD
অবশেষে বরখাস্ত হলেন সৈয়দপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আলোচিত সেই নার্স | Central News BD
বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ০৩:২০ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
মিঠাপুকুরে কামরু প্রথমবার, পীরগঞ্জে মণ্ডলের হ্যাট্রিক ফিলিস্তিনে যুদ্ধ বিরতি কার্যকর দাবীতে রংপুরে ছাত্র-জনতার বিক্ষোভে পুলিশের বাঁধা রংপুরে আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের তিন সদস্যের সাজা প্রদান বড় চমক রেখে শক্তিশালী দল ঘোষণা আর্জেন্টিনার রংপুরে সামাজিক সম্প্রীতি ও নাগরিকত্ব বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত বেরোবিতে গাইবান্ধা জেলা সমিতির নেতৃত্বে মোশফিকুর-শাকিল নারীদের জীবনমান উন্নয়নে নীলফামারীর ডিমলায় মহিলা সমাবেশ এরশাদের সমাধিতে পুষ্পমাল্য দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন জিএম কাদের দ্বাদশ জাতীয় সংসদের বাজেট অধিবেশন ৫ জুন ক্রেতারা প্লট বা ফ্ল্যাট কিনে যেন হয়রানির শিকার না হয় : রিহ্যাবকে রাষ্ট্রপতি 

অবশেষে বরখাস্ত হলেন সৈয়দপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আলোচিত সেই নার্স

শাহজাহান আলী মনন, সৈয়দপুর
  • আপডেট সময় : সোমবার, ১৮ এপ্রিল, ২০২২
  • ১০৯ জন সংবাদটি পড়েছেন
অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ার দীর্ঘ তিন বছর পর বরখাস্ত হলেন নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আলোচিত এক সেবিকা (নার্স)। অনেক প্রচেষ্টা চালিয়েও শেষ পর্যন্ত ম্যানেজ করতে পারলেননা কর্তৃপক্ষকে। তবে টাকার জোড়ে বেশ বিলম্ব করাতে সক্ষম হয়েছেন তিনি।
এই ঘটনা ঘটেছে নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। পাঁচ দিনের ছুটি নিয়ে দুই বছর ধরে চীনে থাকা। সেই সময় সেখানে উচ্চ শিক্ষাগ্রহণ ও চাকুরী করা। এবং এই দীর্ঘ সময়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে কোন প্রকার যোগাযোগ না করেও অবলীলায় বেতন ভাতা গ্রহণ।
এমন অস্বাভাবিক কর্মকাণ্ডের জন্য আলোচিত সেই জনের নাম হচ্ছে শাহিনুর পারভীন ওরফে রোজী। তিনি ওই প্রতিষ্ঠানের সিনিয়র নার্স। তাঁর বিরুদ্ধে কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া অনুপস্থিতির অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় অবশেষে তাঁকে বরখাস্ত করা হয়েছে।
গত সপ্তাহে এ-সংক্রান্ত চিঠি দেয়া হয়েছে। নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিদপ্তরের অতিরিক্ত সচিব সিদ্দিকা আকতার স্বাক্ষরিত ওই চিঠি প্রাপ্তির বিষয় শনিবার (১৬ এপ্রিল) নিশ্চিত করেছেন সৈয়দপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: আবু মো. আলেমুল বাসার।
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা গেছে, শাহীনুর পারভীন ২০১৭ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি সৈয়দপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে পাঁচ দিনের ছুটি নিয়েছিলেন। এরপর দুই বছরের বেশি সময় কর্মস্থলে অনুপস্থিত ছিলেন তিনি।
অনুমতি ছাড়া অনুপস্থিতির কারণ জানতে চেয়ে একই বছরের ২ এপ্রিল তাঁকে চিঠি পাঠায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। তবে ওই চিঠির কোনো জবাব দেননি তিনি। অথচ যথারীতি চাকুরীর সকল সুবিধা গ্রহণ করছিলেন।
এই ঘটনায় সেই সময় বেশ আলোচনার সৃষ্টি হয় সৈয়দপুরে। কিন্তু স্থানীয় কর্তৃপক্ষ বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করে। এমনকি অনুপস্থিতিকালীন সরকারী সকল সুবিধা প্রদানে সহযোগীতা করেছেন তারা। বিনিময়ে তারাও সুবিধার ভাগ নিয়েছেন নানা কৌশলে।
ফলে অনেকটা আলোচিত হয়েও স্থবির হয়ে গিয়েছিল এসংক্রান্ত সব ধরনের তৎপরতা। কিন্তু পরিবর্তিতে ওই নার্সেরই একটি চিঠির কারণে আবারও তোলপাড় শুরু হয়।
জানা যায়, ২০১৯ সালে ৭ জুলাই কর্মস্থলে যোগদানের জন্য কর্তৃপক্ষকে ওই চিঠি দেন শাহিনুর। কর্তৃপক্ষ অনুমতি ছাড়া কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকায় ২০১৯ সালের ১৩ অক্টোবর শাহীনুর পারভীনের বিরুদ্ধে একটি বিভাগীয় মামলা করে।
মামলার শুনানিতে তিনি উপস্থিত হন ২৭ অক্টোবর। শুনানিতে তাঁর উত্তর সন্তোষজনক না হওয়ায় বরখাস্তের সিদ্ধান্ত নেয় কর্তৃপক্ষ। যা দীর্ঘ প্রায় ৩ বছর পর বাস্তবায়ন করলো স্বাস্থ্য বিভাগ।
অভিযোগ রয়েছে অভিযুক্তের কাছ থেকে অবৈধ সুবিধা প্রাপ্তরা উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে সোমঝোতার চেষ্টা করায় বিষয়টি এতো বিলম্বিত হয়েছে। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি।
সৈয়দপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: আলেমুল বাশার বলেন, শাহীনুর পারভীন পাঁচ দিনের ছুটি নিয়ে দুই বছর লাপাত্তা ছিলেন। জেনেছি এ সময় তিনি চীনে উচ্চশিক্ষা গ্রহণ শেষে একটি প্রতিষ্ঠানে চাকরিও করেন। তবে সরকারী সুবিধা প্রদানে তাদের সম্পৃক্তার কথা বা দায় এড়িয়ে যান এই কর্মকর্তা।
এ নিয়ে ওই নার্সের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনিও কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি। এমনকি তার বাসায় যাওয়া হলে তিনি দেখা করতেও সম্মত হননি।

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন

এই ক্যাটাগরীর আরও খবর

© ২০২১-২৩ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | সেন্ট্রাল নিউজ বিডি.কম

Theme Designed BY Kh Raad ( Frilix Group )